পুজো নিয়ে শুরু হলো ছ্যাবলামো


কলকাতার একটি বিখ্যাত পুজো মণ্ডপে একজন অতিথি মঞ্চে দাঁড়িয়ে চণ্ডী পাঠ নিয়ে স্রেফ ছ্যাবলামো মেরে গেলেন । তারপর কথা ঘোরানোর জন্য শ্রীকুমারকে নিয়ে প্রায় ইয়ার্কি মারলেন । আমরা টিভিতে পুরোটা লাইভ দেখলাম ।

অন্য কোন ধর্মের অনুষ্ঠানে গিয়ে তাঁদের ধর্ম গ্রন্থ নিয়ে পারতেন এই স্তরে নামতে ?

সব কিছু জানতে হবে, সব লাইন মুখস্থ রাখতে হবে কেউ তাঁকে দিব্যি দিতে বলেনি । তিনি না জানতেই পারেন, তাঁর মুখস্থ না থাকতেই পারে, তাঁকে মাইক্রোফোনে সব উদগীরণ করতে হবে কে তাকে দিব্যি দিয়েছে ? অথচ সেটাই তিনি করে যাচ্ছেন নিয়ম করে । আর সেক্যুলার বাঙালি বাড়ির ড্রয়িং রুমে বসে সমালোচনা করছে । বাইরে বেরোলে সেই বাঙালির মুখে সেলো টেপ । এ এক অদ্ভুত বিচিত্র অবস্থা !!

পিতৃপক্ষেই মাতৃ আবাহন করে দিলেন । অন্য কোন ধর্মের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে গিয়ে এই কীর্তি করতে পারতেন ? বলতে পারতেন আজ নয় সাত দিন আগে ধর্মীয় আচরণ শুরু করুন । একবার ট্রাই করে দেখুন না । কি জোটে কপালে দেখবেন । বাঙালি একটু বেশি মাত্রায় আসলে সেক্যুলার বলেই কি তাঁদের ঘাড়ে সব বোঝা ??

শুধু কি তাই ? অন্য ঘটনাটা দেখুন । টালা প্রত্যয়ের পুজো উদ্বোধনে ডেট দিয়ে রেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী । তাই যাচ্ছি যখন ওদিন পাশেই টালা ব্রিজ উদ্বোধন করে দিই । অথচ সেই সময়ে টালা ব্রিজ তখনও রেডি নেই । ব্রিজ উদ্বোধন হয়ে গেছে শুনে গুচ্ছের গাড়ি এসে হাজির হল । মুখ্যমন্ত্রী চলে যেতে গাড়ি গুলোকে বলা হল ব্রিজ এখনও রেডি হয়নি । তাহলে ? তাহলে আসলে কিছুই নয় । এভাবেই চলছে রাজ্য । কখনো ঠাকুরের মন্ত্র নিয়ে মাইক্রোফোনে ইয়ার্কি মেরে, তামাশা করে । আবার কখনো ব্রিজ রেডি না হতেই হয়ে গেল দিব্যি উদ্বোধন । অর্থাৎ বাচ্চা ভূমিষ্ঠ না হতেই হয়ে গেল অন্নপ্রাশন ! নিমন্ত্রণ ! কার্ড বিতরণ । কি বলবেন একে ?

আমি বেশি মাত্রায় ঠাকুরের চোখ আঁকব, ফিতে কাটব, ভুল ভাল মন্ত্র আওড়াব। নিজে আলোয়ে থাকব বাকিদের অন্ধকারে রাখব । গ্র্যাজুয়েট ছেলে মেয়েদের বলব কেটলি কেন, মুড়ির সঙ্গে বাদাম মেশাও, বউকে বলো ঘুগনি করে দিতে । বেচতে বেরোব ।

এ এক সত্যিই দম বন্ধ করা অবস্থা । প্রতিবাদ, প্রতিরোধ বাঙালি ভুলেছে বলেই কি তার এই কঠিন দশা ? জানিনা, সত্যিই জানিনা । শুধু পিছনে হাঁটার প্রতিযোগিতায় কি বাঙালির এই মরণ দৌড় ? কেউ জানলে জানাবেন ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!