আসুন, ফিরিয়ে আনি প্রণাম করার শিক্ষা, লিখছেন বসু বন্ধু

আসুন, আবার ফিরিয়ে আনি ঘরে, বাইরে মাথা নিচু করে প্রণাম করার সংস্কৃতি। দয়া করে ভাববেন না এইসব আদিম ভাবনা, সেকেলে সংস্কৃতি, কিংবা এর মধ্যে আবার খুঁজবেন না হেজেমনি, কর্তৃত্ব তন্ত্র। আসলে আমরা অনেক তন্ত্র মন্ত্র নানা কথা বলি, কিন্তু এটা বুঝি না যে প্রতিটা সম্পর্ক টিকে থাকে পারস্পরিক শ্রদ্ধায়। প্রণাম করতে করতেই সেই শ্রদ্ধাবোধের শিক্ষাটা তৈরি হয়।এটা সবার আগে শিখুক আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম, আমাদের ছাত্রছাত্রী, শিশুকাল থেকেই তাঁরা জানুক মাথা নিচু করলে মাথা উচুই হয়। শ্রদ্ধা থাকলে তবেই জ্ঞান অর্জন করার ইচ্ছেটা তৈরি হয়, বিনয় ভিতরে থাকলে কিছু গ্রহণ করার ইচ্ছেটা তৈরি হয়।বিনয় মানুষকে মনুষ্যত্ব অর্জন করতে প্রস্তুত করে, নইলে শুধু লেখাপড়ায় নম্বর, চাকরি, বেতন হয়,উন্নতি হয়, বিকাশ হয় না, কারণ শিক্ষা হয় না।মানুষ হয় না।
গঙ্গার মা বললেন, স্যারকে প্রণাম কর।আমি বসেছিলাম, ভাবলাম বলি, না, থাক।দরকার নেই।তারপর মনে হলো, অন্যায় করব।ছোট বাচ্চাটা এরপর আর বড় হয়ে মাথা নত করার শিক্ষাটা ভুলে যাবে।জীবনে আচরনে এই অভিজ্ঞতা ওদের থাকা দরকার, আমরা তো এভাবেই মাথা নিচু করে প্রণাম করতে করতেই বড় হয়েছি।আমরা যদি প্রণাম করতে শিক্ষা না দিই, তাহলে আমরা ওদের বিনয়ের শিক্ষা দেব কী করে? আজ এই বিনয়ের অভাবেই তো সমাজে সর্বস্তরে এই এত ঘরে ঘরে ঔদ্ধত্য, দুরত্ব, অশান্তির আবহাওয়া।বিনয় না থাকলে শ্রদ্ধা, সম্মান দেওয়া, শিখবে কি করে? এসব ভেবে উঠে দাঁড়ালাম।
শিক্ষক হয়ে প্রণাম নেওয়ার মধ্যে দিয়েই বিনয়ের ,সম্মান জ্ঞাপনের এবং শ্রদ্ধা প্রদর্শনের ভারতীয় সংস্কৃতির শিক্ষা ছাত্রছাত্রীদের দিতে হবে, প্রণাম করতে দেখাতে হবে, শেখাতে হবে, এটাও সকল শিক্ষক, গুরুজন, আমাদেরই কাজ।

Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!