Wednesday, July 28, 2021

কাঁটা শুভেন্দু, সরে গেলেন সৌমিত্র রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি থেকে

রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি পদ থেকে ইস্তফা দিলেন বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। নিজেই ফেসবুক পোস্টে এই ঘোষণা করেছেন তিনি। তবে, দল ছাড়ছেন না সৌমিত্র। তিনি বিজেপিতে রয়েছেন, আগামিতেও গেরুয়া দলে থাকবেন বলে সোশাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন।কিন্তু কেন এই সিদ্ধান্ত?

- Advertisement -

সরাসরি দিলীপ ঘোষ আর শুভেন্দু অধিকারীকে কাঠগড়ায় তুললেন সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। বুধবার তিনি ফেসবুকে লাইভে সরাসরি শুভেন্দু কে নিশানা করে বলেন, ‘বিরোধী দলনেতা নিজেকে জাহির করার চেষ্টা করছেন। এককেন্দ্রিক পার্টি হয়ে যাচ্ছে বিজেপি। দিল্লি গিয়ে শুধু ভুল বোঝানো হচ্ছে। আমি কখনও নিজের জন্য কিছু চাইনি। তবে যা হচ্ছে ভুল হচ্ছে। বাবা-ভাইয়ের জন্য কিছু চাইনি। ভুলকে সবসময় তুলে ধরব।‘

আসলে দলের মধ্য থেকেই নির্বাচনের সজিব কোন কোন মহল থেকে সৌমিত্রর কাছে এমন বার্তা পৌঁছে গিয়েছিল যে বাংলার ভোটের পর মন্ত্রিসভায় রদবদল হলে মোদির মন্ত্রিসভায় স্থান হতে পারে। গত দুমাস আগে এই মর্মে তার কাছে মোটামুটি নিশ্চিত খবর ছিল। নির্বাচনের পর থেকে হাওয়া ঘুরতে থাকে।ইতিমধ্যে দিল্লির কেন্দ্রীয় নেতারা বাংলার ব্যাপারে শুভেন্দুর সঙ্গে আলোচনা চালাতে থাকেন। নাদ্দা, অমিত শাহদের সঙ্গে মিটিংয়ে আগামী ভোটের স্ট্র্যাটেজি ঠিক করে সেই মতো মন্ত্রিত্বের জন্য বাছাই শুরু হয় ।সৌমিত্রর দিল্লি প্রীতির জন্য শেষ পর্যন্ত তার মন্ত্রিসভায় স্থান হয় নি, এমনটাই সৌমিত্র মনে করেন।তাই শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করার পর যখন তিনি বুঝলেন যে তার নাম নেই তিনি ফেসবুকে এ কথা লিখে দলীয় নেতৃত্বকে চাপে রাখতে চাইলেন।তাই তিনি বলেছেন, “কাজ করব। আমাকে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে। আমাদের রাজ্য সভাপতি অর্ধেক বোঝেন, অর্ধেক বোঝেন না। নতুন নেতা এসে দিল্লিকে ভুল বোঝানোর চেষ্টা করছেন। এমন দেখানো হয়েছে যেন উনি একাই আত্মত্যাগ করেছেন। আমাদের সবাই লড়াই আছে, আত্মত্যাগ আছে। বিরোধী দলনেতা আয়নায় একটু মুখ দেখুন। নিজেকে বড় বিজেপি নেতা হিসেবে দেখাচ্ছেন। দিল্লি গিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের ভুল বোঝাবেন না। আপনি যেভাবে চাইছেন তাতে বাংলা এগোবে না।”
ফেসবুক পোস্টে সৌমিত্র মন্ত্রিসভায় স্থান পাওয়া নিয়ে কোনো কথা লেখেন নি, বরং এ রাজ্য থেকে তাঁর দলের যাঁরা মন্ত্রীত্ব পেয়েছেন তাঁদেরকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি লিখেছেন, ‘আজ থেকে আমি আমার ব্যক্তিগত কারণে যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি পদ থেকে অব্যাহতি নিলাম। বিজেপি-তে ছিলাম, বিজেপি-তে আছি, আর আগামী দিনে বিজেপি-তেই থাকব।’
তাহলে কি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভায় ঠাঁই না পেয়েই সৌমিত্র এমন সিদ্ধান্ত নিলেন? জল্পনা তুঙ্গে।

- Advertisement -
- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -

Popular Articles

error: Content is protected !!