Friday, June 25, 2021

প্রতিদিনই তো ডাক্তার মারা যাচ্ছে, কোনো সরকার কিছু করছে কি? চিকিৎসার খরচটুকু সরকার দেয় না, আর কি বলব? প্রশ্ন পুণ্যব্রত গুণের

মারা গেলেও কেন্দ্রের প্রতিশ্রুতি মতো ৫০ লক্ষ টাকা কেউ পায় নি, রাজ্যর ১০ লাখ পেয়েছেন মাত্র চারজন, অথচ এখনও পর্যন্ত মৃত চিকিৎসক এই রাজ্যে কত সেটাও সরকারিভাবে প্রতিদিন জানানো হয় না।

- Advertisement -

করোনা প্রতিরোধ করতে গিয়ে প্রতিদিন একের পর এক ডাক্তার মারা যাচ্ছেন।আমরা অনেক কিছু নিয়ে সরব হয়েছি ,কিন্তু এত ডাক্তারের মৃত্যুর পরেও চিকিৎসকদের মৃত্যু ঠেকাতে কী সরকার যথেষ্ট ব্যবস্থা নিয়েছে? ডাক্তারদের নিরাপত্তায় সরকার কি ভাবছে? মৃত চিকিৎসকেরা কী ঘোষণা মতো ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন?এই সব প্রশ্ন নিয়ে আমরা মুখোমুখি হয়েছিলাম পশ্চিমবঙ্গে স্বাস্থের অধিকার নিয়ে আন্দোলনের অন্যতম মুখ ডা. পুণ্যব্রত গুণের সঙ্গে।

সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়কে জানালেন ডা.পুণ্যব্রত গুণ

আমাদের পশ্চিমবঙ্গে  প্রথম যে চিকিৎসক মারা যান তাঁর নাম ড. বিপ্লব দাশগুপ্ত। তাঁকে নিয়ে চিকিৎসকদের যে মৃত্যু মিছিল শুরু হয়েছিল, সেটি এখনও চালু আছে। শুরুর দিকে সমস্যা ছিল পিপি ই। চিকিৎসক, এবং চিকিৎসাকর্মীদের প্রটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট দেওয়া হয় নি। প্রথমে রেইনকোটকে পিপি ই হিসেবে চালানো হয়েছে, প্রতিবাদ করা হয়েছে। প্রতিবাদ করার পরে  পি পি ই কোয়ালিটি বেড়েছে। কেবলমাত্র যাঁরা করোনা হাসপাতালে চিকিৎসা করছেন তাঁরাই শুধু মারা যাচ্ছেন ঘটনাটা তা নয়। যাঁরা নন কোভিড রোগীদের চিকিৎসা করছেন তাঁরাও মারা  যাচ্ছেন। এটা খুব স্বাভাবিক। তার কারণ , আমরা জানি, করোনা রোগীদের ১০০ জনের মধ্যে ৮০ থেকে ৮৫ জন হচ্ছে উপসর্গ হীন। এদের কোন উপসর্গ থাকে না। করোনা চিকিৎসা হয়ত রোগী করতেই আসেন নি। হয়তো অন্য কোন উপসর্গ নিয়ে ডাক্তার দেখাতে এসেছে । তিনিও যে করোনা রোগী সেটা তো আমাদের জানা নেই। অথচ এরা কিন্তু রোগের জীবাণু বহন করে এবং অন্যকে সংক্রমণ করতে পারে ।
করোনা হাসপাতাল গুলিতে যারা কাজ করছেন তাঁরা তো তাও পিপি ই পড়ে প্রটেকশন নিয়ে কাজ করছেন । তাদের চেয়েও যারা বাইরে কাজ করছে তাদের কিন্তু বিপদটা বেশি হচ্ছে। এই নিয়ে একটা সমীক্ষা হয়েছিল,তার স্ট্যাটিস্টিকটা এই মুহূর্তে হাতের কাছে নেই, তাতে দেখা গেছিল যে ভারতের যত জন ডাক্তার মারা  গেছে তাদের মধ্যে জেনারেল ফিজিশিয়ান এর সংখ্যা সবথেকে বেশি।এর  মানে যারা আউটডোরে বা চেম্বার এ পেশেন্ট দেখছেন করোনা তাদেরই বেশি মেরে ফেলেছে। এইটা হচ্ছে একটা দিক আর একটা দিক হচ্ছে যে সাধারন মানুষ আক্রান্ত হলে তার যত টা মৃত্যুর সম্ভাবনা তার থেকে ৭০% বেশি মৃত্যুর সম্ভাবনা চিকিৎসক বা চিকিৎসাকর্মীদের। এটা মেনে নিয়েছেন সব চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মী।

চিকিৎসা করাটা আমাদের পেশা আর প্রত্যেকটা  পেশার ই কিছু ঝুঁকি থাকে । পেশাগত রোগ বিভিন্ন রকম হয় যদিও  , সেই হিসেবে আমি ধরে নিয়েইছি, এটা আমাদের পেশাগত রোগ, ঝুঁকি বেশি । তা হলেও এর জন্য আমাদের যা যা পাওয়ার কথা ছিল সেগুলো পাইনি।

নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা করেছিলেন কোন চিকিৎসক বা চিকিৎসা কর্মী মারা গেলে  তার ফ্যামিলিকে ৫০ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে। আমাদের রাজ্যে একজন ও পায় নি. মমতা ব্যানার্জির ঘোষণা করেছিলেন চিকিৎসা কর্মী মারা গেলে ১০ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে! মাত্র ৪ জনের ফ্যামিলি এই টাকাটা পেয়েছে। এই মুহূর্তে সিচুয়েশনটা এমনই।  অন্যদিকে কোন চিকিৎসাকর্মী যদি অসুস্থ হন   চিকিৎসার খরচের দায়িত্ব কিন্তু সেই চিকিৎসকের। সরকার হোক বা বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, কেউ দায়িত্ব নিচ্ছে না অসুস্থ ডাক্তারদের চিকিৎসার। কোন একজন সরকারি ডাক্তারকে  সরকারি হাসপাতলে ভর্তি করা হলে যদি তিনি দেখা যায় তিনি সেখানে ভালো হচ্ছে না, তাহলে তাকে অন্য কোন প্রাইভেট হসপিটালে ভর্তি করতে হবে । সেখানে কিন্তু তাকে  নিজের পকেটের পয়সা খরচ করতে  হচ্ছে এবং সেটা করে বেশ কিছু চিকিৎসক সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন, তাদের পরিবার সর্বস্বান্ত হয়ে গেছেন এরকমঘটনাও আছে। সরকারি হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা করতে গিয়ে  যেসব চিকিৎসক আক্রান্ত হচ্ছেন তাদের যদি ছোটখাটো সমস্যা থাকে জ্বর, কাশি এইসব সাধারন সমস্যা, এইসবে দায়িত্ব হাসপাতাল নিচ্ছে । কিন্তু বড় কিছু হলে তার দায়িত্ব নিচ্ছে না । এটা নিয়ে কেউ ভাবছে না।এই করোনা যুদ্ধে সরকার চিকিৎসকদের সৈন্য হিসেবে নিয়োগ করেছে, তাদের চিকিৎসার ব্যবস্থা যদি না নেয় তাহলে তো মুশকিল । এই  ডিমান্ডটা শুরু থেকে জানিয়ে আসছি আজকের কথা নয়।

প্রতিদিনই আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলেছে । সেজন্য একজ্যাক্ট নাম্বারটা বলতে পারব না । এই মুহূর্তে কত আজকে কত সেটা বলতে পারবো না।. গতবারের টোটাল ছিল ৭০ জনের মতো ! গতসপ্তাহে আক্রান্ত ছিল হান্ডেড ফোর্টি! প্রতিদিনই একাধিক ডাক্তার মারা যাচ্ছেন ,তাই সংখ্যা বাড়ছে।

একাধিকবার আমরা মিট করেছি সরকারের সঙ্গে। একাধিকবার তারা বলেছে হ্যাঁ এসবের ব্যবস্থা হবে। আমাদের কাছে নাম পাঠান কাদের কম্পেনসেশন দিয়ে হবে।কিন্তু সত্যিই কী কেউ কিছু করছে কি?

- Advertisement -
- Advertisement -

Related Articles

- Advertisement -

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -
[td_block_7 modules_on_row=”eyJwaG9uZSI6IjEwMCUifQ==” image_floated=”float_left” image_width=”30″ image_height=”100″ show_btn=”none” show_excerpt=”none” modules_category=”above” show_date=”none” show_review=”none” show_com=”none” show_author=”none” meta_padding=”eyJhbGwiOiIwIDAgMCAxNXB4IiwicG9ydHJhaXQiOiIwIDAgMCAxMHB4In0=” art_title=”eyJhbGwiOiI4cHggMCAwIDAiLCJwb3J0cmFpdCI6IjVweCAwIDAgMCJ9″ f_title_font_family=”712″ f_title_font_size=”eyJhbGwiOiIxNSIsInBvcnRyYWl0IjoiMTEifQ==” f_title_font_weight=”500″ f_title_font_line_height=”1.2″ title_txt=”#000000″ cat_bg=”rgba(255,255,255,0)” cat_bg_hover=”rgba(255,255,255,0)” f_cat_font_family=”712″ f_cat_font_transform=”uppercase” f_cat_font_weight=”400″ f_cat_font_size=”11″ modules_category_padding=”0″ all_modules_space=”eyJhbGwiOiIyNCIsInBvcnRyYWl0IjoiMTUiLCJsYW5kc2NhcGUiOiIyMCJ9″ category_id=”” ajax_pagination=”load_more” sort=”jetpack_popular_2″ title_txt_hover=”#008d7f” tdc_css=”eyJwaG9uZSI6eyJtYXJnaW4tYm90dG9tIjoiNDAiLCJkaXNwbGF5IjoiIn0sInBob25lX21heF93aWR0aCI6NzY3LCJhbGwiOnsiZGlzcGxheSI6IiJ9LCJwb3J0cmFpdCI6eyJkaXNwbGF5IjoiIn0sInBvcnRyYWl0X21heF93aWR0aCI6MTAxOCwicG9ydHJhaXRfbWluX3dpZHRoIjo3Njh9″ cat_txt=”#000000″ cat_txt_hover=”#008d7f” f_more_font_weight=”” f_more_font_transform=”” f_more_font_family=”” image_size=”td_150x0″ f_meta_font_family=”712″ custom_title=”Popular Articles” block_template_id=”td_block_template_8″ border_color=”#008d7f” art_excerpt=”0″ meta_info_align=”center” f_cat_font_line_height=”1″ pag_h_bg=”#008d7f” image_radius=”100%” td_ajax_filter_type=”” f_header_font_size=”eyJwb3J0cmFpdCI6IjE1IiwiYWxsIjoiMTgifQ==” f_header_font_weight=”500″ f_header_font_transform=”uppercase” f_header_font_family=”712″ pag_h_border=”#008d7f” m6_tl=”50″ f_header_font_line_height=”1.5″ m6f_title_font_size=”eyJhbGwiOiIxNiIsInBob25lIjoiMTcifQ==” m6f_title_font_line_height=”1.5″]
error: Content is protected !!